অনির্বাণ ফার্মাসিটিক্যালসের কারখানা সিলগালা ও ৩০ লাখ টাকা জরিমানা

নিজস্ব প্রতিবেদক: সেলিম মোঃ শাজাহান গতবারের বাংলাদেশ আয়ুর্বেদিক মেডিসিন ম্যানুফ্যাকচারার্স এসোসিয়েশন এর সভাপতি ছিলেন। অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ। কোনো ফার্মাসিস্ট নেই, ল্যাবরেটরিও নেই। ওষুধ তৈরির কাঁচামালেও পচন ধরেছে। এরপরও রাজধানীর জুরাইনে অনির্বাণ ফার্মাসিউটিক্যাল উৎপাদন করছিল ওষুধ! বাজারজাতও করা হচ্ছিল সেসব ওষুধ।

গত সোমবার র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত প্রতিষ্ঠানটিতে অভিযান চালিয়ে এমন দৃশ্য দেখে রীতিমতো আঁতকে ওঠেন। ওষুধের নামে ‘বিষ’ তৈরির ওই ফার্মাসিউটিক্যাল প্রতিষ্ঠানটিকে সিলগালা করে ৩০ লাখ টাকা জরিমানা করেছেন আদালত। কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে ছয়জনকে।

দণ্ড পাওয়া ছয়জন হলেন- প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তা মফিজুল ইসলাম, আবদুর রহমান, এনায়েত হোসেন, নাজমুল হোসেন, এনামুল কবির ও আরিফ হোসেন। তাদের মধ্যে প্রথম দু’জনকে ৩০ লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে প্রত্যেককে তিন মাস করে কারাদণ্ড দেওয়া হয়। অন্য চারজনকে এক মাস করে কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

অভিযানে নেতৃত্ব দেওয়া র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম সাংবাদিকদের জানান, অনির্বাণ ফার্মাসিউটিক্যাল আয়ুর্বেদিক ওষুধ উৎপাদনের লাইসেন্স নিয়েছিল, কিন্তু তারা সব ধরনের ওষুধ উৎপাদন করে আসছিল। সেখানে ওষুধের নামে মানুষ মারার বিষ তৈরি করা হচ্ছিল। তিনি বলেন, এর আগেও প্রতিষ্ঠানটির লাইসেন্স তিনবার স্থগিত করে তাদের সতর্ক করা হয়। সতর্ক না হওয়ায় এবার সেটি সিলগালা করে দেওয়া হয়েছে।

এসময় অভিযানে উপস্থিত ছিলেন পরিচালক নায়ার সুলতানা সহকারী পরিচালক ইয়াহিয়া ও লোকাল ড্রাগ সুপার এ টি এম গোলাম কিবরিয়া।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *