অচলাবস্থা নিরসনে আন্দোলনের মুখে সমঝোতা বৈঠক জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের

নিজস্ব প্রতিবেদক: জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অচলাবস্থা নিরসনে আন্দোলনকারীদের তিন দফা দাবীর দু’টিতে সমঝোতা হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের। শুধু উন্নয়ন প্রকল্পে দুর্নীতির অভিযোগ, সেটি এক সপ্তাহের মধ্যে আইন পরামর্শকদের সাথে আলোচনার পর তা সমাধানের আশ্বাস দেয়া হয়।

বৃহস্পতিবার (১২ সেপ্টেম্বর) বিকেল থেকে দীর্ঘ সাড়ে ৫ ঘন্টা আলোচনার পর রাত নয়টায় উভয় পক্ষ থেকে ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার রহিমা কানিজ সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার রহিমা কানিজ বলেন, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর হলের পাশের হল নির্মাণের সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

এছাড়াও সকল স্টেকহোল্ডারদের সাথে আলোচনা করে মাস্টার প্ল্যান এর যাবতীয় কাজ নতুন করে শুরু করার সিদ্ধান্ত নেয়াও হয় এ আলোচনা সভায়।

এ সমঝোতা বৈঠকে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে উপাচার্য, উপ-উপাচার্য, ট্রেজারার, রেজিস্ট্রার এবং আন্দোলনকারীরত শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে ১৬ জনের একটি প্রতিনিধি দল উপস্থিত ছিলেন।

৩ দফা দাবির মধ্যে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর হল সংলগ্ন নির্মাণাধীন ৩টি হল অন্যত্র স্থানান্তর এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল স্টেকহোল্ডারদের সাথে আলোচনা করে অধিকতর উন্নয়ন প্রকল্পের মাস্টার প্লানের পুনর্বিন্যাসের দাবি মেনে নেয়া হয়। এছাড়া প্রশাসনের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগের বিচার বিভাগীয় তদন্তের দাবির প্রেক্ষিতে আগামি বুধবার আলোচনা সাপেক্ষ সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানানো হয়।

উল্লেখ্য চলতি বছর ৩০ জুন তারিখে বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় পাঁচটি হলের নির্মাণকাজের উদ্বোধনের পর থেকেই শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের একটি অংশ বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের বিরুদ্ধে উন্নয়ন প্রকল্পে অপরিকল্পনা, লুটপাট ও দুর্নীতির অভিযোগ এনে ‘দুর্নীতির বিরুদ্ধে জাহাঙ্গীরনগর’ ব্যানারে বিক্ষোভ মিছিল, অবরোধসহ আন্দোলন করে আসছিল।

সমঝোতা সিদ্ধান্তের পর স্বস্তি প্রকাশ করেছে বিশ্ব বিদ্যালয়ের সাধারন শিক্ষার্থীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *